Sun Mercury Venus Ve Ves
বিশেষ খবর
নাট্যযোদ্ধা সম্মাননা পেলেন নোয়াখালী রত্ন গোলাম কুদ্দুছ  আসামের বন্যায় নোয়াখালীর ছবি!  রায়পুরে দুই নারীর লাশ উদ্ধার  লক্ষ্মীপুরের দালাল বাজারে ‘মা’ সমাবেশ  লক্ষ্মীপুরে পুলিশের সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী সভা 

লক্ষ্মীপুরে ভিজানো সুপারির গন্ধে দূষণ হচ্ছে পরিবেশ মেশানো কেমিক্যালে বাড়ছে ক্যান্সারের ঝুঁকি

লক্ষ্মীপুরে পাকা সুপারি ভিজিয়ে পচানো হচ্ছে। জেলার বিভিন্ন স্থানে পুকুর, নালা-ডোবায় এবং খালে সুপারি পচানোর ফলে ছড়াচ্ছে দুর্গন্ধ। ব্যাপকভাবে দূষিত হচ্ছে পানি ও পরিবেশ। সদর উপজেলার মান্দারী, জকসিন, দালাল বাজার, মিয়া রাস্তার মাথা, রায়পুর উপজেলার বাসাবাড়ি, হায়দারগঞ্জ, রাখালিয়া, মাইলের মাথা এবং রামগঞ্জে দাসপাড়া, সোনাপুরসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে পানিতে পচানো হচ্ছে কয়েক কোটি টাকার সুপারি। ভেজানো সুপারির ব্যবসার সাথে জড়িত রয়েছে জেলার প্রায় দুই শতাধিক ব্যবসায়ী। আবার কোনো কোনো স্থানে দেখা যায় সুপারিতে রং ধরে রাখার জন্য ব্যবসায়ীরা সুপারিতে রং ও কেমিক্যাল ছিটাচ্ছেন, যা স্বাস্থের জন্য ক্ষতিকর।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, জেলায় ৬ হাজার ৩৫৫ হেক্টর জমিতে সুপারি বাগান রয়েছে। ওইসব বাগানে চলতি বছরে ১২ হাজার টন সুপারি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যার বাজার দর প্রায় ৩২৫ কোটি টাকা। উৎপাদিত সুপারির বেশিরভাগই খাল, ডোবা-পুকুরে, পানি ভর্তি পাকা হাউসে ভিজিয়ে রাখেন ব্যবসায়ীরা। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ব্যাপারীরা এখানে কিনে নেন এবং রোদে শুকিয়ে সংরক্ষণ ও বিক্রি করেন তারা।
সরেজমিনে সদর উপজেলার জকসিন, মান্দারী, দালালবাজারের ইছাহাজি তেমুহনী, রানীর হাট, পালের হাট, চর রুহিতার দাসপাড়া, লাহারকান্দিসহ বিভিন্ন স্থানে গিয়ে দেখা যায়, পুকুর-ডোবা নালায় পচানো হচ্ছে কয়েক কোটি টাকার সুপারি। চলতি বছর ভেজা সুপারির ব্যবসার সাথে জড়িত রয়েছেন জেলার অন্তত দুই শতাধিক ব্যবসায়ী।
লক্ষ্মীপুরের সিভিল সার্জন ডা. মোঃ মোস্তফা খালেদ আহমেদ জানান, যে কোনো কৃত্রিম রং স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। সুপারিতে বিষাক্ত রং মেশানোর ফলে মানবদেহে বিভিন্ন রোগসহ ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সবার সচেতন হওয়া জরুরি।
লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামান জানান, খালে সুপারি ভেজানো ও সুপারিতে কেমিক্যাল এবং বিষাক্ত রং না মেশানোর জন্য বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ীকে ডেকে এনে প্রাথমিকভাবে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।
-কিশোর কুমার দত্ত