Sun Mercury Venus Ve Ves
বিশেষ খবর
স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শফিউল বারী বাবুর ইন্তেকাল  ফেনী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আর নেই  করোনা ক্রান্তিকালে লক্ষ্মীপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল ও পুলিশ সুপার  এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে ধর্ষণের প্রতিবাদে কোম্পানীগঞ্জে ছাত্রদলের মানববন্ধন  ফেনী জেলা পরিষদ শিশু পার্ক থেকে বিমুখ স্থানীয়রা 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য হলেন প্রফেসর ড. এএসএম মাকসুদ কামাল

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রো-ভিসি) হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। ২৫ জুন ঢাবির আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের ডিন এবং দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের এ অধ্যাপককে প্রোভিসি পদে নিয়োগ দিয়ে আদেশ জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ।

আদেশে বলা হয়- রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলরের অনুমোদনক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আদেশ, ১৯৭৩-এর ১৩ (১) ধারা অনুযায়ী উপ-উপাচার্য পদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমেদের মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় এই শূন্য পদে চার বছরের জন্য আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের ডিন এবং দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামালকে নিয়োগ দেয়া হলো।

আদেশে আরো উল্লেখ করা হয়, উপ-উপাচার্য হিসেবে তিনি বর্তমান পদের সমপরিমাণ বেতন-ভাতা পাবেন এবং বিধি অনুযায়ী পদসংশ্লিষ্ট অন্যান্য সুবিধা ভোগ করবেন। উপ-উপাচার্য হিসেবে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংবিধি ও আইন দ্বারা নির্ধারিত ক্ষমতা প্রয়োগ ও দায়িত্ব পালন করবেন। রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজন মনে করলে যে কোনো সময় এ নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন। এছাড়া তিনি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির চারবারে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি সাবেক বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী এবং লক্ষ্মীপুর-৩ আসনের সাংসদ একেএম শাহজাহান কামালের সহোদর ভাই।

প্রফেসর ড. মাকসুদ কামাল ১৯৬৬ সালের ২১ নভেম্বর লক্ষ্মীপুর জেলার সদর থানার লাহারকান্দি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিুা মরহুম ফরিদ আহমেদ মিঞা এবং মাতা মাছুমা খাতুন। মাকসুদ কামাল ২০০০ সালে সৈয়দা আফসানা ফেরদৌসি এর সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তাঁর সহধর্মিণী শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত। তাঁদের ২ ছেলে ও ১ মেয়ে। ড. মাকসুদ কামাল ১৯৮২ সালে লক্ষ্মীপুর এইচ এম সামাদ একাডেমি স্কুল থেকে এসএসসি, ১৯৮৪ সালে লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ হতে এইচএসসি এবং ১৯৮৮ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগ থেকে বিএসসি (সম্মান) ও ১৯৮৯ সালে এমএসসি ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি সকল পরীক্ষায়ই কৃতিত্বের সাথে প্রথম শ্রেণি লাভ করেন। ১৯৯৮ সালে নেদারল্যান্ডস্ এর ঞবিহঃঃব বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর এ্যারোস্পেস সার্ভে এন্ড আর্থ সায়েন্সেস থেকে অঢ়ঢ়ষরবফ এবড়সড়ৎঢ়যড়ষড়মরপধষ ধহফ ঊহমরহববৎরহম এবড়ষড়মরপধষ ঝঁৎাবু বিষয়ে এমএসসি ডিগ্রি লাভ করেন। ২০০৪ সালে জাপানের টোকিও ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে ভূমিকম্প ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা বিষয়ে গবেষণা করে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন শেষে টোকিও ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে যোগদানের সুযোগ পেয়েও তা গ্রহণ না করে মাতৃভূমির টানে দেশে ফিরে আসেন এই দেশপ্রেমী ব্যক্তিত্ব।

অধ্যাপক এএসএম মাকসুদ কামাল ২০০০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন এবং ২০১০ সালে অধ্যাপক হন। তাঁর সক্রিয় উদ্যোগে ২০১২ সালে দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগ প্রতিষ্ঠিত হয়। তিনি ঐ বিভাগের অধ্যাপক ও প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থ এন্ড এনভায়রণমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের ২ বারের নির্বাচিত ডিন এবং ঐতিহ্যবাহী মাস্টার দা সূর্যসেন হলের প্রভোস্ট। একইসাথে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ও সিন্ডিকেট সদস্য। এছাড়া তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির পর পর তিনবারের নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ছিলেন, বর্তমানে তিনি সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পারন করছেন। তিনি বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনেরও সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বাংলাদেশ ভূতাত্ত্বিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ সোসাইটি অব জিওইনফরমেটিক্স এর সভাপতি। দুর্যোগ প্রতিরোধ ও ব্যবস্থাপনা বিশেষজ্ঞ হিসেবেও তিনি দেশ-বিদেশে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছেন। তাঁর ৫০টিরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ গবেষণা প্রবন্ধ দেশি-বিদেশি জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। ড. মাকসুদ কামাল শিক্ষকতা পেশায় ও শিক্ষক সমাজের কল্যাণসেবায় শত ব্যস্ততার মাঝেও বহু সমাজসেবী সংগঠনের সাথে যুক্ত আছেন।