Sun Mercury Venus Ve Ves
বিশেষ খবর
সরকারের সচিব হলেন লক্ষ্মীপুরের সুসন্তান মোঃ হাবিবুর রহমান  অতিরিক্ত আইজিপি হলেন লক্ষ্মীপুরের কৃতী সন্তান মোহাম্মদ ইব্রাহীম ফাতেমী  লক্ষ্মীপুরে বঙ্গবন্ধু জাতীয় যুব দিবস পালিত  সকলের সহযোগিতা নিয়ে কাজ করতে চাই -মোহাম্মদ মাসুম, ইউএনও, লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা  ফেনী জেলা পরিষদ শিশু পার্ক থেকে বিমুখ স্থানীয়রা 

রায়পুরে এ্যানির আতংকে গ্রামবাসী

ফারুক চৌধুরী এ্যানি (৩০)। তার কারণে গত কয়েকমাস ধরে প্রবাসী, ব্যবসায়ী ও শিক্ষকসহ গ্রামবাসীর সার্বক্ষণিক আতংকে থাকতে হয়। এই ঘটনার প্রতিকার চেয়ে থানা পুলিশ ও আওয়ামীলীগ নেতাদের কাছে বিচার দাবি জানালেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছে না বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। সম্প্রতি এ্যানি তার সহযোগীদের নিয়ে ডিস ও পত্রিকা ব্যবসায়ী আবু সাঈদ হিরনের দোকানে গিয়ে রোজার মাস চার ওয়াক্ত নামাজের সময় ডিস লাইন চালানো যাবে না বলে হুমকি দিয়ে আসে। এ ঘটনায় ওই ব্যবসায়ী আতংকিত হয়ে থানার ওসিকে অবহিত করেছেন। তবে এসব ঘটনায় এ্যানিকে গ্রেপ্তার করতে খুঁজে বেড়াচ্ছেন বলে ওসি জানান।

এ্যানি লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের সায়েস্তানগর গ্রামের চালতাতলী এলাকার মৃত তাজল ইসলাম চৌধুরীর ছেলে এবং উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। সে বর্তমানে তাবলীগ জামায়াতের সাথে সম্পৃক্ত।
 
ক্ষতিগ্রস্ত কয়েকজন ব্যবসায়ী ও গ্রামবাসী জানান, সম্প্রতি ওই ইউনিয়নের দেবীপুর গ্রামের মৈশাল বাড়ির প্রবাসী নুর নবীর ছেলে কোচিং সেন্টারের শিক্ষক মোবারক হোসেন ও প্রবাসী আহম্মদ উল্যার ছেলে সাইফুল ইসলাম তাদের এলাকার বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এসময় এ্যানি সিএনজি যোগে তার সহযোগীদের নিয়ে এসে মোবারক ও সাইফুলকে কৌশলে গোপন স্থানে নিয়ে যায়। এ্যানি ও তার সহযোগীরা সেখানে মোবারক ও সাইফুলের নতুন মটর সাইকেল ও তিনটি দামী মোবাইল সেট নিজেদের কাছে রেখে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন চালায়। মোবারক ও সাইফুলের অভিভাবকের  কাছে ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। রাত ১টায় তারা উভয়েই কৌশলে এ্যানির বাড়ির পাশের ডাকাতীয়া নদী পার হয়ে প্রাণে রক্ষা পায়। এই ঘটনা জানতে পেরে তাদের অভিভাবকরা এ্যানির বাড়ি ঘেরাও করলে তারা পালিয়ে যায়।

এর আগে একই এলাকার তাজল ইসলামের ছেলে আজগরকে এ্যানি তাদের বাড়ির পাশে নিয়ে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন করে ননজুডিশিয়াল খালি ষ্ট্যাম্পে দস্তখত নিয়ে ছেড়ে দেয়। একই এলাকার সাবেক সেনা সদস্য তোফায়েল আহম্মদের ছেলে আল আমিনকে অজ্ঞাত স্থানে তুলে নিয়ে আড়াই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এক পর্যায়ে টাকা না পেয়ে এ্যানি ও তার সহযোগীরা আল আমিনকে নির্যাতন করে ছেড়ে দেয়। এই ঘটনার এক মাস আগে ওই এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তি আবদুস ছাত্তারের ছেলে জামান ও আবদুল মালেক খানের ছেলে সুমনকে রাতের আঁধারে অস্ত্র ঠেকিয়ে মটর সাইকেল, টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যায়। শহরের ডিস লাইন ব্যবসায়ী আবু সাঈদ হিরনের এক কর্মচারীকে আটকিয়ে তার দামী মটরসাইকেলটি ছিনিয়ে নিয়ে যায়। তিনদিন পর আওয়ামীলীগ নেতাদের সহযোগিতায় ওসির মাধ্যমে ঐ মটর সাইকেলটি উদ্ধার করা হয়।

শুধু এইসব ঘটনাই নয়, এ্যানি তার কাছে অস্ত্র ও সহযোগীদের নিয়ে এলাকায় কয়েকদিন পর পর তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে লঙ্কাকান্ড বাঁধিয়ে দেয়। কয়েকদিন আগে ফয়সাল নামের এক প্রবাসীর বাড়িতে গিয়ে তাকে হত্যা করতে উদ্ধত হয়। এছাড়াও প্রায় ছয়মাস আগে শাহী হোটেলে গিয়ে ব্যবসায়ীর কাছে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে এ্যানি। না পেয়ে ব্যবসায়ীকে হত্যার হুমকি দিলে ব্যবসায়ী থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন।
এই বিষয়ে ওমর ফারুক চৌধুরী এ্যানির সঙ্গে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তার বক্তব্য নেয়া যায়নি।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মারুফ বিন জাকারিয়া বলেন, দলে সক্রিয় না থাকায় তিন বছর আগে এ্যানিকে বাদ দিয়ে জুম্মন হোসাইন নামে একজনকে দায়িত্ব দেয়া হয়। সে এখন খারাপ কাজ করলে দল দায়ভার নিবে না।

এই ব্যাপারে রায়পুর থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মামুন ভূঁইয়া বলেন এ্যানির বিরুদ্ধে ব্যবসায়ী, প্রবাসী, ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষক, ছাত্র ও গ্রামবাসী অভিযোগ করেছেন। তাকে আমরা খুঁজে বেড়াচ্ছি।
-তাবারক হোসেন আজাদ