Sun Mercury Venus Ve Ves
বিশেষ খবর
লক্ষ্মীপুরে মডেল থানা পুলিশের আলোচনা সভা ও আনন্দ উদযাপন  লক্ষ্মীপুরে বিএনপি নেতা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সোহেলের সংবাদ সম্মেলন  লক্ষ্মীপুর মডেল থানায় ওসি (তদন্ত) শিপন বড়ুয়ার যোগদান  ঘর মেরামতে ঢেউটিন উপহার পেলেন লক্ষ্মীপুরের দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী জসিম  রায়পুর প্রেস ক্লাবের নির্বাচনে সভাপতি মাহবুবুল আলম মিন্টু ও সম্পাদক আনোয়ার হোসেন নির্বাচিত 

বিদ্যোৎসাহী-সমাজসেবী ও আধুনিক ধ্যান-ধারণার মূর্ত প্রতীক, বর্ণিল গুণাবলির কর্মযোগী ও কল্যাণকামী ব্যক্তিত্ব
-ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মুকতাদির বেলাল

বিদ্যোৎসাহী, সমাজসেবী ও আধুনিক ধ্যান-ধারণার মূর্ত প্রতীক, বর্ণিল গুণাবলির কর্মযোগী ও কল্যাণকামী ব্যক্তিত্ব ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মুকতাদির বেলাল। রোডস এন্ড হাইওয়েজ বিভাগের এডিশিনাল চীফ ইঞ্জিনিয়ারসহ বিভিন্ন পদে থেকে ইঞ্জিনিয়ার মুকতাদির বেলাল তাঁর দীর্ঘ ৩৩ বছরের কর্মজীবনে রাস্তা-ব্রীজ-কালভার্ট, ফেরী, টোলপ্লাজা নির্মাণ ও পরিচালনার মাধ্যমে দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে ঈর্ষণীয় অবদান রেখেছেন।
ইঞ্জিনিয়ার মুকতাদির বেলাল ১৯৫২ সালের ১ জানুয়ারি ঢাকা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা আ ক ম আবদুল মান্নান এবং মাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা। তাঁর স্ত্রী সাম্মাইতুহা মরিয়ম; তাঁদের ২ ছেলে আবদুল মুহীত ও আবদুল মুনীম এবং মেয়ে সুমাইয়া মুকতাদির। ইঞ্জিনিয়ার মুকতাদির বেলাল ১৯৭৫ সালে বুয়েট থেকে বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ১৯৭৯ সালে অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অফ নিউসাউথ ওয়েলস থেকে পোস্ট গ্রাজুয়েট ডিপ্লোমা অর্জন করেন। তিনি দেশ-বিদেশের বিভিন্ন সংস্থা থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।
ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মুকতাদির বেলাল তাঁর দীর্ঘ সরকারি চাকরি জীবনে দক্ষতা, সততা, নিরপেক্ষতা ও সর্বোচ্চ পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করেন। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কর্তৃক নির্মিত ৪টি বড় সেতুর মধ্যে ২টিই নির্মিত হয় তাঁর তত্ত্বাবধানে। তিনি কর্ণফুলী সেতু, ভৈরব সেতু নির্মাণে প্রজেক্ট ডিরেক্টরসহ দেশের বিভিন্ন ব্রীজ-কালভার্ট, সড়ক-মহাসড়ক নির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।
সরকারি চাকরি থেকে অবসর গ্রহণ করেও এ কর্মবীর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে উচ্চপদে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির চেয়ারম্যান, ইনফ্রাস্ট্রাকচার সার্ভিসেস লিঃ এবং কীর্তি হোল্ডিংস লিঃ এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর, ইনফ্রাডেভ এন্ড এসোসিয়েটস লিঃ এর ডিরেক্টরের দায়িত্ব পালন করছেন। বর্ণিল গুণাবলির কর্মযোগী এ ব্যক্তিত্ব ২০১৬ সালে সিআইপি নির্বাচিত হন।
ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মুকতাদির বেলাল নানা কর্মব্যস্ততার মাঝেও বিভিন্ন সমাজকর্মের সাথে জড়িত রয়েছেন। তিনি বাংলাদেশ খো-খো ফেডারেশনের ভাইস-প্রেসিডেন্ট, বাংলাদেশ আর্চারি ফেডারেশনের ফাউন্ডার সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট, রোডস এন্ড হাইওয়েজ ইঞ্জিনিয়ার এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট এর দায়িত্ব পালন করেন দু’মেয়াদে।
জন্ম-এলাকার ঋণ পরিশোধেও এ মহান ব্যক্তিত্ব সর্বদা সক্রিয়। লক্ষ্মীপুরের মাটি ও মানুষের প্রতি রয়েছে তাঁর অগাধ ভালোবাসা। তিনি মাইজদী-রামগঞ্জ-ছয়ানী-বসুরহাট-চন্দ্রগঞ্জ রোড নির্মাণে মূল স্থপতি। তাঁর একক প্রচেষ্টায় সড়ক অধিদপ্তর কর্তৃক এটি আঞ্চলিক মহাসড়ক হিসেবে নির্মিত হয়েছে। তাঁর নিজ গ্রামে একটি মসজিদ নির্মাণ করেছেন।