Sun Mercury Venus Ve Ves
বিশেষ খবর
নাট্যযোদ্ধা সম্মাননা পেলেন নোয়াখালী রত্ন গোলাম কুদ্দুছ  আসামের বন্যায় নোয়াখালীর ছবি!  রায়পুরে দুই নারীর লাশ উদ্ধার  লক্ষ্মীপুরের দালাল বাজারে ‘মা’ সমাবেশ  লক্ষ্মীপুরে পুলিশের সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী সভা 

জীবনের ঝুকি নিয়ে পারাপার হচ্ছে গ্রামের মানুষ লক্ষ্মীপুরে ভাঙ্গা ব্রিজের উপর বাঁশের সাঁকো

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা চররমনী মোহনের মুছার খালে প্রায় ১শ’ ফুট লম্বা ভাঙ্গা ব্রিজের উপর বাঁশের সাঁকো দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন প্রায় ৪টি গ্রামের মানুষ চলাচল করছে। লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চররমনী মোহনের ৭ নং ওয়ার্ডের মূছার খালের আশে-পাশের লোকজন, ভবানীগঞ্জ, কালির চর, মতির হাটসহ ৩/৪টি গ্রামের মানুষ এই ভাঙ্গা ব্রিজের বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার হয়।
এলাকার লোকজন জানান, রহমত খালি খালের সংযোগে ৮০ দশকে লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের বাস্তবায়নে মুছার খালের গোড়ায় এই ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়। ব্রিজটি নির্মাণের ৪/৫ বছরের মধ্যে জোয়ার-ভাটার পানির ঢেউয়ের কারণে ব্রিজটির মাঝের পিলার দু’টি দেবে যায়। উপরে দেখা যায় ফাটল। এক পর্যায়ে ব্রিজটি ভেঙ্গে খালে পড়ে যায়।
র্দীঘ ৩১ বছর অতিবাহিত হলেও এখানে নতুন করে ব্রিজ নির্মাণ করা হয়নি। এলাকাবাসী ব্রিজটি নির্মাণে বহু জায়গায় অনেক আবেদন-নিবেদন করেছেন। অনেকে আশ্বাসও দিয়েছেন; কিন্তু কাজ হয়নি।
লক্ষ্মীপুর সদর ও কমলনগর উপজেলার মানুষের যাতায়াতের জন্য এই ব্রিজটি খুবই গুরত্বপূর্ণ। দুই উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের স্কুল, মাদ্রাসা, কলেজের শিক্ষার্থী, কামার-কুমার, জেলে-তাতী, কৃষক, শ্রমজীবীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রায় ২/৩ হাজার মানুষ এই ভাঙ্গা ব্রিজের উপর বাঁশের সাঁকো দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন পারাপার হচ্ছে। কৃষকের উৎপাদিত কৃষিপণ্য বাজারে আনতে ও পশু পারাপারে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে তাদের।
৭ নং ওয়ার্ড মেম্বার জানান, এ অঞ্চলের মানুষ কৃষি কাজের উপর নির্ভরশীল, কৃষি উৎপাদন ছাড়া এ এলাকার মানুষের চলা খুবই মুশকিল। তাই উৎপাদিত ফসল, শাকসবজি, ধান, গম খালের ঐ পাড়ের ফসলগুলো লক্ষ্মীপুর জেলা শহরে আমদানি-রপ্তানি করতে হলে এই সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। প্রতিবছর এই এলাকার লোকজনের স্বেচ্ছাশ্রম ও সহযোগিতায় বছরে ২ বার ব্রিজের উপর বাঁশের সাঁকো তৈরি করা হয়।
জনস্বার্থে অতিদ্রুত এখানে নতুন করে ব্রিজ নির্মাণ করা হলে লোকজনের যাতায়াতের একটি নতুন দিগন্ত সৃষ্টি হবে। তাই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি দেয়ার জন্য জোর দাবি জানান এ ইউপি সদস্য।