Sun Mercury Venus Ve Ves
বিশেষ খবর
লক্ষ্মীপুরে মডেল থানা পুলিশের আলোচনা সভা ও আনন্দ উদযাপন  লক্ষ্মীপুরে বিএনপি নেতা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সোহেলের সংবাদ সম্মেলন  লক্ষ্মীপুর মডেল থানায় ওসি (তদন্ত) শিপন বড়ুয়ার যোগদান  ঘর মেরামতে ঢেউটিন উপহার পেলেন লক্ষ্মীপুরের দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী জসিম  রায়পুর প্রেস ক্লাবের নির্বাচনে সভাপতি মাহবুবুল আলম মিন্টু ও সম্পাদক আনোয়ার হোসেন নির্বাচিত 

ঈদ অনুষ্ঠানে নোয়াখালীর গর্বিত সন্তান বাংলাদেশে জিঙ্গেলের রানীখ্যাত শিল্পী সুমনা হক

নোয়াখালীর গর্বিত সন্তান, বাংলাদেশে জিঙ্গেলের রানীখ্যাত সুমনা হক বেশ কয়েক বছর যাবত নিয়মিত গান গাওয়া কিংবা জিঙ্গেলে কণ্ঠ দেয়া থেকে অনেকটাই দূরে রয়েছেন। গুণী এই সঙ্গীত শিল্পীর সঙ্গে আলাপকালে জানা যায়, গানে কিংবা জিঙ্গেলে নিয়মিত হওয়ার আর তেমন কোনো সম্ভাবনা নেই। তবে বিশেষ দিবসে গুণী এই কণ্ঠশিল্পীকে দু’একটি বিশেষ অনুষ্ঠানে দেখা যায়। ঠিক তেমনি এবারের ঈদেও সুমনা হককে ছোট বেলার এবং বড় বেলার ঈদ স্মৃতিচারণ নিয়ে কথা বলতে দেখা যাবে চ্যানেল আইয়ের জন্য নির্মিত ‘তিন কন্যার ঈদ’ অনুষ্ঠানে। এরইমধ্যে সুমনা হক এই অনুষ্ঠানের জন্য সময় দিয়েছেন এবং রেকর্ডিংয়ের কাজও শেষ হয়েছে। এতে সুমনা হক ছাড়া আরও থাকছেন সঙ্গীতা খান ও শমী কায়সার। অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা ও উপস্থাপনা করেছেন পূণম প্রিয়ম। তবে ঈদের কোনদিন চ্যানেল আইতে প্রচার হবে, তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি বলে জানান পূণম প্রিয়ম।
অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া প্রসঙ্গে সুমনা হক বলেন, এবারই প্রথম এই ধরনের একটি অনুষ্ঠানে আমরা তিনজন অংশ নিয়েছি। ঈদের স্মৃতিচারণ নিয়ে আমরা বেশ জমিয়ে আড্ডা দিয়েছি। সত্যিই একটি অন্যরকম অনুষ্ঠান হয়েছে। আমার বিশ্বাস দর্শকের ভালো লাগবে। এদিকে এবারের ঈদে একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলেও সুমনা হককে সঙ্গীত পরিবেশন করতে দেখা যাবে। এরইমধ্যে সুমনা হক গানটির রেকর্ডিংয়ের কাজ শেষ করেছেন।
সঙ্গীত এবং জিঙ্গেল থেকে বলা যায় অনেকটাই দূরে থেকে এখন নীরবে-নিভৃতে নিজের মতো করেই জীবনযাপন করছেন সুমনা হক। গান নয়, এখন যেন নিজেকে আঁকাআঁকিতেই বেশি ব্যস্ত রাখছেন। পরিকল্পনা আছে এ বছর নতুন চিত্রপ্রদর্শণী করার। সবকিছু থেমে গেলেও আঁকাআঁকি তাঁর থেমে নেই। সুমনা হককে সর্বশেষ বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘ভালো যদি বাসো সখি’র বিশেষ পর্বে রবীন্দ্র সঙ্গীত পরিবেশন করতে দেখা যায়। এদিকে ২০১০ সালে বেঙ্গল মিউজিক থেকে সুমনা হকের প্রথম রবীন্দ্র সঙ্গীতের এ্যালবাম ‘তুমি রবে নীরবে’ বাজারে আসে। এতে মোট গান আছে ১১টি। সুমনা হক তাঁর তৃতীয় আধুনিক গানের একক এ্যালবাম ‘কিছু স্মৃতি কিছু বেদনা’ ২০১৫ সালে প্রকাশ করেন। পনেরো বছর পর আধুনিক গানের এ্যালবাম শ্রোতাদের কাছে তুলে দেন তিনি। ১৯৮৪-৮৫ সালে সুমনা হক একজন নিয়মিত শিল্পী হিসেবে বাংলাদেশ টেলিভিশন এবং বাংলাদেশ বেতারে তালিকাভুক্ত হন।
১৯৮৬ সালে ফোয়াদ নাসের বাবুর সঙ্গীতায়োজনে পেপস জেল এর জিঙ্গেল করার মধ্যদিয়ে জিঙ্গেলে তাঁর একচ্ছত্র আধিপত্য শুরু হয়। এরপর টানা ১০/১২ বছর শুধু জিঙ্গেলেই করেছেন তিনি। ম্যানোলা মানের টলমল শিশিরের লাবণ্য, রানী রানী রানী রানী কোন রানী বৌরানী প্রিন্ট শাড়ি বৌরানী, অন্ধকারে পথ দেখাকে অলিম্পিক অলিম্পিক অলিম্পিক ব্যাটারী, প্রিয় প্রিয় প্রিয়-প্রিয় প্রিয় প্রিয়-সুন্দরী প্রিন্ট শাড়ি সুন্দরী কিংবা ওলে ওলে পাপ্পা-সোনা জাদু মনিরে এমন আরও অনেক জনপ্রিয় জিঙ্গেল কণ্ঠ দিয়েছিলেন সুমনা হক। ১৯৮৮ সালে সারগামের ব্যানারে সুমনা হকের প্রথম একক এ্যালবাম ‘মায়াবী রাতে’ বাজারে আসে। প্রথম এ্যালবামের ব্যাপক সাফল্যের পর দীর্ঘ প্রায় একযুগ বিরতি নিয়ে বাজারে আসে সুমনা হকের দ্বিতীয় একক এ্যালবাম ‘মাঝে কিছু বছর গেলো’ এ্যালবামটি।
বিশিষ্ট গায়িকা ও অংকন শিল্পী সুমনা হক ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পৈত্রিক নিবাস নোয়াখালীর চৌমুহনীতে। পিতা ইপিআইডিসি’র সাবেক অর্থ পরিচালক মরহুম আনোয়ারুল হক, মাতা প্রখ্যাত কবি খালেদা এদিব চৌধুরী। প্রখ্যাত রাজনীতিবিদ সাবেক রাষ্ট্রপতি ডাঃ এ কিউ এম বদরুদ-দৌজা চৌধুরী এবং প্রখ্যাত সাহিত্যিক-সাংবাদিক, বামপন্থি রাজনীতিক শহীদুল্লাহ কায়সার তাঁর খালু, অধ্যাপিকা পান্না কায়সার তাঁর খালা। তাঁর ভাই ইঞ্জিনিয়ার তানভীরুল হক প্রবাল রিহ্যাব’র প্রেসিডেন্ট ছিলেন।